স্মার্টফোনের গতি বাড়বে যেভাবে

No Comments

1456029622
স্মার্টফোনটি প্রায় নতুন। মাস ছয়েক আগেই কেনা। কিন্তু গতি নেই আগের মতো, অনেক কমে গেছে! কেনার পর পরও এমন ছিলো না সাধের ফোনটি। এ রকম পরিস্থিতির সম্মুখীন কম বেশি প্রায় সকলেই হন। চাইলেই তো আর ডিভাইস বদলে ফেলা যায় না। তবে এর ধীরগতি বদলে ফেলা যায়।
সময়ের সঙ্গে সঙ্গে স্মার্টফোনের বিভিন্ন ফিচারের পারফরম্যান্স কমতে থাকে। ফলে গতি ধীর হয়ে যায়। কাজ করার সময় সেটি যেমন হ্যাং হয়, তেমনি অন্যান্য উটকো ঝামেলাও তৈরি করে।
এমন পরিস্থিতি থেকে বাঁচাতে এই প্রতিবেদন। এখানে বলে রাখা ভালো যে, ফোন যতই আধুনিক হোক তার যত্ন দরকার। আর সামান্য কিছু যত্ন পেলেই একটি স্মার্টফোন তার গতি বাড়িয়ে ফেলতে পারে। শুধু গতিই নয়, কিছু কৌশল প্রয়োগ করলে ফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপও বেড়ে যাবে।
১. ফোন ভাইরাসমুক্ত রাখুন
ফোনে র‍্যাম যত বেশি, গতিও তত বেশি। র‍্যামই আপনার ফোনের গতি বাড়িয়ে দেয়। তাই নিয়মিত ফোনের র‍্যাম পরিষ্কার রাখুন। প্রয়োজনে মাঝে মাঝে রিবুটও করতে পারেন।
২. ক্যাশ পরিষ্কার রাখুন
ক্যাশ বিল্ডআপ আপনার ফোনের গতি কমিয়ে দেয়। তাই নিয়মিত আইফোনের ক্যাশ পরিষ্কার করুন। প্রতিদিন কমপক্ষে একবার করতে পারলেই ভাল।
৩. মেসেজ জমানো কমান
আপনার ফোনের মেসেজ বক্সে জমে থাকা পুরনো মেসেজ পুরো ফোনটিকেই মন্থর করে দেয়। মেসেজে ছবি ভিডিও আদানপ্রদান করলে অনেক জায়গাও নষ্ট করে। তাই অপ্রয়োজনীয় মেসেজ ডিলিট করুন।
৪. অ্যানিমেশন বন্ধ রাখুন
নতুন অ্যাপ ওপেন করার সময় বা একটি অ্যাপ থেকে অন্য অ্যাপে যাওয়ার সময় কিছু অ্যানিমেশন দেখায় যেগুলো দেখতে বেশ ভাল লাগে। এগুলি ফোনকে ধীরগতির করে দেয়। ব্যাটারিও খরচ করে।
৫. ওয়াই-ফাই প্রয়োজন ছাড়া অফ রাখুন
যদি আপনার ওয়াই-ফাই সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় তাহলে সঙ্গে সঙ্গে আপনার সেলুলার ডাটা অন হয়ে যাবে এমন ফিচার থাকলে ভাল। তাতে ব্যাটারি খরচ অনেকটা কমবে।
৬. লো পাওয়ার মোড অন রাখুন
ফোনের চার্জ যখন একেবারে নীচে নেমে আসে তখন ব্যাটারি বাঁচাতে লো পাওয়ার মোড অপশন অন করুন। এতে ব্যাটারি কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত বেশি সার্ভিস দেবে।
৭. লোকেশন সার্ভিস খুলবেন না
কিছু অ্যাপ সর্বদা আপনার লোকেশন জানান দিতে থাকে। কিন্তু স্মার্টফোন বা আইফোনে অনেক অ্যাপই লোকেশন সার্ভিস চালু করে রাখে। এগুলো বন্ধ করে দিয়ে ফোনের ব্যাটারি সংরক্ষণ করুন।
৮. ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ বন্ধ করুন
আপনি অনেক অ্যাপ ব্যবহার করে বন্ধ করে দেয়ার পরেও সেটি ব্যাকগ্রাউন্ডে চালু থাকে এবং নিয়মিত আপডেট নিতে থাকে। তাই সেটিংস মেন্যুতে গিয়ে ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ রিফ্রেশ বন্ধ করে রাখুন। ব্যাটারি ক্ষয় কমাবে। গতি বাড়াবে।

স্মার্টফোনটি প্রায় নতুন। মাস ছয়েক আগেই কেনা। কিন্তু গতি নেই আগের মতো, অনেক কমে গেছে! কেনার পর পরও এমন ছিলো না সাধের ফোনটি। এ রকম পরিস্থিতির সম্মুখীন কম বেশি প্রায় সকলেই হন। চাইলেই তো আর ডিভাইস বদলে ফেলা যায় না। তবে এর ধীরগতি বদলে ফেলা যায়।
সময়ের সঙ্গে সঙ্গে স্মার্টফোনের বিভিন্ন ফিচারের পারফরম্যান্স কমতে থাকে। ফলে গতি ধীর হয়ে যায়। কাজ করার সময় সেটি যেমন হ্যাং হয়, তেমনি অন্যান্য উটকো ঝামেলাও তৈরি করে।
এমন পরিস্থিতি থেকে বাঁচাতে এই প্রতিবেদন। এখানে বলে রাখা ভালো যে, ফোন যতই আধুনিক হোক তার যত্ন দরকার। আর সামান্য কিছু যত্ন পেলেই একটি স্মার্টফোন তার গতি বাড়িয়ে ফেলতে পারে। শুধু গতিই নয়, কিছু কৌশল প্রয়োগ করলে ফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপও বেড়ে যাবে।
১. ফোন ভাইরাসমুক্ত রাখুন
ফোনে র‍্যাম যত বেশি, গতিও তত বেশি। র‍্যামই আপনার ফোনের গতি বাড়িয়ে দেয়। তাই নিয়মিত ফোনের র‍্যাম পরিষ্কার রাখুন। প্রয়োজনে মাঝে মাঝে রিবুটও করতে পারেন।
২. ক্যাশ পরিষ্কার রাখুন
ক্যাশ বিল্ডআপ আপনার ফোনের গতি কমিয়ে দেয়। তাই নিয়মিত আইফোনের ক্যাশ পরিষ্কার করুন। প্রতিদিন কমপক্ষে একবার করতে পারলেই ভাল।
৩. মেসেজ জমানো কমান
আপনার ফোনের মেসেজ বক্সে জমে থাকা পুরনো মেসেজ পুরো ফোনটিকেই মন্থর করে দেয়। মেসেজে ছবি ভিডিও আদানপ্রদান করলে অনেক জায়গাও নষ্ট করে। তাই অপ্রয়োজনীয় মেসেজ ডিলিট করুন।
৪. অ্যানিমেশন বন্ধ রাখুন
নতুন অ্যাপ ওপেন করার সময় বা একটি অ্যাপ থেকে অন্য অ্যাপে যাওয়ার সময় কিছু অ্যানিমেশন দেখায় যেগুলো দেখতে বেশ ভাল লাগে। এগুলি ফোনকে ধীরগতির করে দেয়। ব্যাটারিও খরচ করে।
৫. ওয়াই-ফাই প্রয়োজন ছাড়া অফ রাখুন
যদি আপনার ওয়াই-ফাই সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় তাহলে সঙ্গে সঙ্গে আপনার সেলুলার ডাটা অন হয়ে যাবে এমন ফিচার থাকলে ভাল। তাতে ব্যাটারি খরচ অনেকটা কমবে।
৬. লো পাওয়ার মোড অন রাখুন
ফোনের চার্জ যখন একেবারে নীচে নেমে আসে তখন ব্যাটারি বাঁচাতে লো পাওয়ার মোড অপশন অন করুন। এতে ব্যাটারি কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত বেশি সার্ভিস দেবে।
৭. লোকেশন সার্ভিস খুলবেন না
কিছু অ্যাপ সর্বদা আপনার লোকেশন জানান দিতে থাকে। কিন্তু স্মার্টফোন বা আইফোনে অনেক অ্যাপই লোকেশন সার্ভিস চালু করে রাখে। এগুলো বন্ধ করে দিয়ে ফোনের ব্যাটারি সংরক্ষণ করুন।
৮. ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ বন্ধ করুন
আপনি অনেক অ্যাপ ব্যবহার করে বন্ধ করে দেয়ার পরেও সেটি ব্যাকগ্রাউন্ডে চালু থাকে এবং নিয়মিত আপডেট নিতে থাকে। তাই সেটিংস মেন্যুতে গিয়ে ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ রিফ্রেশ বন্ধ করে রাখুন। ব্যাটারি ক্ষয় কমাবে। গতি বাড়াবে।

প্রথম থেকেই হ্যাকিং, রিভিউ, গ্যাজেট, সফটওয়্যার ইত্যাদি সম্পর্কে আমার ব্যাপক আগ্রহ আমায় ব্লগইন জগতে নিয়ে আসে। আমি সব সময় চেষ্টা করি আমার সামান্যতম জ্ঞানটুকু সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিতে। বর্তমানে আমি কম্পিউটার সায়েন্স এর উপর বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়াশোনা করছি। আমাকে ফেসবুকে পাবেন।

You might like also

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.