১০০ ফেসবুক পেজ বন্ধে বিটিআরসিকে বিএসইসির চিঠি

No Comments

শেয়ারদর প্রভাবিত করার অভিযোগে পুঁজিবাজার-সম্পর্কিত ১০০ ফেসবুক পেজ বন্ধের অনুরোধ জানিয়ে বাংলাদেশ টেলিকম রেগুলেটরি কমিশনকে (বিটিআরসি) চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

BTRC_facebook

 

শেয়ারদর প্রভাবিত করার অভিযোগে পুঁজিবাজার-সম্পর্কিত ১০০ ফেসবুক পেজ বন্ধের অনুরোধ জানিয়ে বাংলাদেশ টেলিকম রেগুলেটরি কমিশনকে (বিটিআরসি) চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। গুজব ছড়ানোসহ নানাভাবে সিকিউরিটিজ আইন অমান্যের দায়ে ২৫টি পেজের বিরুদ্ধে তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ারও অনুরোধ করা হয়েছে সোমবারের ওই চিঠিতে। বিএসইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অনলাইন প্লাটফরম ব্যবহার করে বিনিয়োগকারী ও বাজারকে প্রভাবিত করার বিষয়ে কমিশনের নির্দেশক্রমে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ একটি অনুসন্ধান করে। এর ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট পেজগুলো বন্ধের সুপারিশ করা হয়েছে।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এসব ফেসবুক পেজের মাধ্যমে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ার ক্রয়ে অনুসারী বিনিয়োগকারীদের উদ্বুদ্ধ করা হয়। কোম্পানি লভ্যাংশ ও অন্যান্য মূল্যসংবেদনশীল সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগেই কিছু ফেসবুক পেজ থেকে এর পূর্বাভাস দেয়া হয়, অনেক ক্ষেত্রে ইনসাইডারদের তথ্য হিসেবেও প্রচার করা হয়। আবার কিছু কিছু পেজে বিভিন্ন সিকিউরিটিজের বাজারদরের পূর্বাভাস দেয়া হয়।

কোনো শেয়ার বা সিকিউরিটিজের দর একটি নির্দিষ্ট স্তরে উঠে যাবে— এমন তথ্যের আশায় অনেক সাধারণ বিনিয়োগকারী এসব অনলাইন প্লাটফরমে ভিড় করেন জানিয়ে বিএসইসির একজন কর্মকর্তা বলেন, আমরা লক্ষ করেছি, বিপুল সংখ্যক অনুসারীর সুবাদে দেশের শেয়ারবাজারে এসব পেজের বেশ প্রভাব রয়েছে। শনাক্ত করে আমরা সেগুলো বন্ধের জন্য অনুরোধ করেছি টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রকদের কাছে। এ ধরনের তত্পরতার মাধ্যমে সিকিউরিটিজ আইন লঙ্ঘনের দায়ে ২৫টি পেজের বিরুদ্ধে তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণেরও সুপারিশ করা হয়েছে।

সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অধ্যাদেশ ১৯৬৯-এর ধারা ১৭ অনুসারে, নিজ স্বার্থসিদ্ধি বা অন্য কোনো উদ্দেশ্যে কোনো উপায়েই কেউ কোনো নির্দিষ্ট সিকিউরিটিজ ক্রয় বা বিক্রয়ে অন্যদের প্ররোচনা দিতে পারবে না। বিএসইসির মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সাইফুর রহমান বলেন, বিনিয়োগকারীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বিষয়টি তদন্ত করি। সেখানে অনেক পেজের মাধ্যমে গুজব ও ভিত্তিহীন তথ্য ছড়ানোর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশ স্টক মার্কেট শেয়ার বিজনেস নামের একটি পাবলিক গ্রুপে ৪৩ হাজারের বেশি অনুসারী রয়েছে। ডিএসই ক্লাব, ডিএসই ফর রিস্কি গেম, ডিএসই কারেন্ট ডাটা অ্যানালাইসিস নিউজ, ডিএসই ইনভেস্টরস ক্লাবের মতো গ্রুপগুলোরও ২২ থেকে ৪০ হাজার পর্যন্ত সদস্য রয়েছে। শেয়ারবাজার-সংশ্লিষ্টরা বলে আসছেন, দেশের শেয়ারবাজার এখনো গুজবনির্ভর। বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত গ্রহণের এ প্রক্রিয়া একটি গঠনমূলক ও উন্নত বাজার গঠনের পথে বড় অন্তরায়। বাজারের স্বার্থে আগামীতে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রকদের কাছে আরো সহায়তা চাওয়া হবে জানিয়ে বিএসইসি কর্মকর্তারা বলেন, ইনসাইডার ট্রেডিং ও শেয়ার ক্রয়-বিক্রয়ে সিন্ডিকেশন বন্ধে সন্দেহভাজন বিনিয়োগকারীদের টেলিকথনও রেকর্ড করা হতে পারে।

উল্লেখ্য, ব্লগ ও ফেসবুক পেজের মাধ্যমে শেয়ারদর প্রভাবিত করার দায়ে গত বছরের ৩ আগস্ট মাহবুব সারোয়ার নামের এক ব্যক্তিকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেন শেয়ারবাজার-সম্পর্কিত বিশেষ ট্রাইব্যুনাল। ২০০৭ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত তিনি অন্তত ১০টি ব্লগ ও পেজের মাধ্যমে বিপুল সংখ্যক বিনিয়োগকারীকে শেয়ার কেনাবেচার পরামর্শ দিয়ে আসছিলেন। ২০০৭ সালে মিথ্যা মূলসংবেদনশীল তথ্য প্রচার করে শেয়ারদরে কারসাজির দায়ে গত আগস্টেই বাংলাদেশ ওয়েল্ডিং ইলেকট্রোডস লিমিটেড নামের একটি তালিকাভুক্ত কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নূরুল ইসলাম ও উইকলি ইন্ডাস্ট্রি পত্রিকার সম্পাদক এনায়েত করিমকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেন ট্রাইব্যুনাল।

বণিক বার্তার সৌজন্যে 


প্রথম থেকেই হ্যাকিং, রিভিউ, গ্যাজেট, সফটওয়্যার ইত্যাদি সম্পর্কে আমার ব্যাপক আগ্রহ আমায় ব্লগইন জগতে নিয়ে আসে। আমি সব সময় চেষ্টা করি আমার সামান্যতম জ্ঞানটুকু সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিতে। বর্তমানে আমি কম্পিউটার সায়েন্স এর উপর বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়াশোনা করছি। আমাকে ফেসবুকে পাবেন।

You might like also

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.